অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কোর্স ইন বাংলাদেশ

Spread the love

লিয়েট  মার্কেটিং মাস্টারি কোর্

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কোর্স কেন করবেন ? 

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং  মাস্টারক্লাস  আপনাকে ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাস্টার হিসেবে তৈরি করবে ।

আপনি যদি নিচের কাজগুলো করে ব্যর্থ হয়ে থাকেন তাহলে এই কোর্স আপনাকে এর সমাধান দিবে ইনশাল্লাহ ।

  • যেমন ধরুন আপনি ব্লগিং করে ব্যর্থ হয়েছেন ।
  • আপনি অতীতে অনলাইনে পণ্য বিক্রি করার চেষ্টা করেছিলেন কিন্তু ব্যর্থ হয়েছেন ।
  • অনলাইনে অর্থ উপার্জনের জন্য  কীওয়ার্ড নির্বাচন করতে ব্যর্থ হয়েছেন ।
  • অ্যাফিলিয়েট প্রোডাক্ট এর জন্য এসইও রিলেটেড আর্টিকেল লিখতে  ব্যর্থ হয়েছেন।
  • এমনকি আপনি অনেক কোর্স করে ৫০,০০০ টাকার ও বেশী খরচ করে ফেলেছেন । কিন্তু সফল হননি ।
  • এবং আপনার মূল্যবান কাজের জন্য এই অনলাইন কোর্সে টাকা উপার্জনের জন্য আগ্রহী নন, তবে আপনি চাচ্ছেন অন্যমাধ্যমে কাজ করে সফল হবেন ।

যদি আপনি আপনার ব্যবসায়ের বাইরে আরও কিছু করতে চান অথবা অর্থের জন্য সময় বিনিয়োগ করতে চান,  তবে আমি মনে করি আপনার প্যাসিভ ইনকাম করার প্রবল ইচ্ছা রয়েছে। এবং এই কোর্সে আপনি সেটিই পাবেন ।

অনলাইনে প্রচুর অর্থোপার্জনযোগ্য সুযোগ রয়েছে  তবে ভালো প্রোডাক্ট নির্বাচন করে ভালো কমিশন পাওয়া  একটি বড় চ্যালেঞ্জ

অনলাইনে আপনি অনেক “গুরু” দেখেছেন যারা আপনাকে কীভাবে ক্লিকব্যাঙ্ক থেকে পণ্য বিক্রয় করতে হবে, কিভাবে অ্যাফিলিয়েট লিংক ব্যাবহার করে উপার্জন করবেন কিভাবে ওয়েট লস প্রোডাক্ট বিক্রি করে হাজার হাজার ডলার আনতে পারেন সেটি দেখায় । এবং আপনিও  এটি ব্যবহার করে দেখেছেন, একটি ওয়েবসাইট তৈরি করেছেন, কয়েকটি ছবি , আর্টিকেল যুক্ত করেছেন এবং নিজের পকেটের টাকা ঢেলেও ব্যর্থ হয়েছেন।

আপনি সফল হতে চান, কিন্তু সর্বদা ব্যর্থ এর  কারণ কি ?

  • আত্মবিশ্বাসের অভাব
  • অনলাইনে অনেক প্রোডাক্ট দেখে অভিভূত হওয়া কিন্তু কোথায় থেকে শুরু করবেন তা জানেন না।
  • কী বিক্রি করবেন এবং কোথায়  বিক্রি করবেন তা জানেন না
  • আপনি অনেক কিছু জানেন কিন্তু সেটি এলোমেলো তাই বুজতে পারছেনা কিভাবে শুরু করবেন ।
  • টোটাল মেকানিজমে দুর্বল ।

 এবং এই সমস্ত সমস্যা, অবিচ্ছিন্ন ব্যর্থতা, বন্ধুবান্ধব এবং পরিবারের চাপ থাকা সত্ত্বেও, আপনার অনলাইন ব্যবসা গড়ে তোলার আপনার স্বপ্নটি কখনই বিলুপ্ত হয়নি। আপনি সর্বদা নিজের মতো করে এমন কিছু তৈরি করতে চেয়েছিলেন যেন আপনি গর্বের সাথে সবাইকে বলতে পারেন। তাহলে আপনার অনলাইনে সফল হওয়ার তীব্র ইচ্ছা আছে, কিন্তু সঠিক পথ খুঁজে পাচ্ছেন্না। 

এবং সে কারণেই আমি আপনার জন্য এই কোর্সটি তৈরি করেছি।

এই প্রশিক্ষণে, আপনি শিখতে যাচ্ছেন।

  • লাভজনক প্রোডাক্ট কিভাবে পাবেন ?
  • গুগলে সহজেই র‍্যাঙ্ক করে এমন একটি এসইও-ফ্রেন্ডলী ব্লগ কীভাবে সেট আপ করবেন?
  • কীভাবে একটি লাভজনক অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং ব্লগ সেটআপ করবেন যা অটোপাইলটে অর্থ উপার্জন করতে সক্ষম?
  • কিভাবে নির্দিষ্ট বায়ার পাবেন?
  • আপনার ব্যবসায় কীভাবে ইমেল মার্কেটিং সেটআপ করবেন এবং পাঠক দের কিভাবে একজন ক্রেতা হসেবে রুপান্তর করবেন ?
  • সঠিক ক্রেতাদের সন্ধান করে কীভাবে পোস্ট গুলো প্রমোট করবেন?

 অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং  বিশ্বের সর্বাধিক সুন্দর এবং লাভজনক ব্যবসা।

এটি একটি সাধারণ ব্যবসায়ের মতোই তবে এই মার্কেট এর নিয়ম হল আপনাকে অন্যের প্রোডাক্ট প্রমোট করতে হবে ।

আপনার একমাত্র কাজ হ’ল কার কি সমস্যা সেটি খুঁজে বের করা এবং তাদের চাহিদা মত তাদের কাছে প্রোডাক্ট লিংক দেয়া ।

নির্দিষ্ট ক্লায়েন্ট খুঁজে বের করা মানেই আপনার সেলিং রেট অনেক বেশী পাওয়া । এই কোর্সে এই ব্যাপারে নিখুতভাবে ক্লিয়ার করবো ।  

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আপনি কত ইনকাম করতে পারবেন ?

  •  অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আপনি প্রতিটি পণ্যের দামের ৩০% থেকে ৭৫% এমনকি এর বেশীও উপার্জন করতে পারবেন ।
  • এমনকি এমন কিছু প্রোডাক্ট রয়েছে যা বিক্রয় প্রতি ১০০% পর্যন্ত কমিশন দেয়, যা আমি আমার প্রশিক্ষণে আলোচনা করতে যাচ্ছি।

বাজার ২০২৩ সালের মধ্যে  আরও বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং এটি ৮ বিলিয়ন ব্যয় করবে বলে আশা করা হচ্ছে। তাহলে এর আগেই আমাদেরকে তৈরি হতে হবে ।

 

প্রশ্নটি হল – এই ৮ বিলিয়ন ডলার ব্যয়ে আপনি কত টাকা উপার্জন করতে যাচ্ছেন?

এবং এর জন্য আপনি কতটুকু প্রস্তুত আছেন এবং এটি কিভাবে করবেন ?

প্রথমে আপনি বাজার গবেষণা করেন এবং কে কোন ধরনের সমস্যায় আছে এবং কোন ধরনের সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছে তা সন্ধান করেন।

 ভিজিটররা ব্লগ বা সার্চ ইঙ্গিনে তাদের সমস্যা সমাধানের জন্য অনেক কিছু খুঁজতে থাকে । যেমন ব্রণ থেকে কীভাবে মুক্তি পাবে, কীভাবে কুকুরকে  প্রশিক্ষণ দিতে হবে এবং এমন আরও হাজারো বিষয় রয়েছে যেখানে আপনি এই ধরনের পরিষেবাগুলি খুঁজে পেতে পারেন এবং এই রিলেটেড প্রোডাক্ট প্রচার করতে পারেন।

 এই ধরনের সমস্যা গুলো সমাধান করাই হল অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর কাজ । এবং এই সমাধানটি আমরা করতে যাচ্ছি ।

 এর জন্য, আমরা বাজার পর্যবেক্ষণ করব এবং সঠিক ক্রেতাদের জন্য নির্দিষ্ট  সেরা পণ্যগুলি খুঁজে বের করবো ।

 এরপর আমরা একটি ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগ সেটআপ করতে যাচ্ছি এবং সেখানে বায়ারদের বিভিন্ন  সমস্যা এবং সমাধানের ব্যাখ্যা দিয়ে আর্টিকেল লিখবো । আর্টিকেলটি অবশ্যই সমাধানের জন্য লিখবো ।

 আর্টিকেলটি প্রস্তুত হয়ে গেলে, আমরা ব্লগের এসইও করবো এবং  এটি গুগলে যেন র‌্যাঙ্ক করে সে জন্য পর্যাপ্ত পরিমানে কাজ করবো । এছাড়াও অন্যান্য চ্যানেল গুলোতে আমাদের আর্টিকেল পাবলিশ করার ববস্থা করবো । এবং আমাদের আর্টিকেলটি শিগ্রই যেন অর্থোপার্জন শুরু করে সেই ব্যবস্থা করবো ।

 মুলত অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে আমরা যে ভুল গুলো করি, সেটি হল আমরা খুব কম সময়েই উপার্জন চাই । আমরা গুগলে ভিবিন্ন বিষয় নিয়ে দেখি । এবং কিছু সময় পর একটি বা দুটি প্রোডাক্ট নিয়ে কাজ করার সিদ্ধান্ত নেয় । কিন্তু যখন দেখি অনেক কম্পিটিটর আছে তখন সরে আসি । এবং আমরা একটি ব্লগ তৈরি করার পর সেখানে অনেক ভিজিটর আসে কিনা সেটি দেখি । যখন দেখি কোন ভিজিটর নেই তখনি এই কাজ থেকে সরে যাই ।

তাহলে সঠিক অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর জন্য কি করবো ?

এমন একটি প্রোডাক্ট নিয়ে কাজ করতে হবে যার কম্পিটিটর  খুবই কম । কিন্তু সার্চ ভলিউম বেশী । প্রাথমিক পর্যায়ে এই ব্যাপারটি সঠিক ভাবে নির্ণয় করতে হবে । তারপর গুগলে রাঙ্ক করার জন্য এসইও করতে হবে । এই কাজটিই আমরা করতে যাচ্ছি ।

নিচে  কিছু অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর পরিসংখ্যান দিয়েছি

emarketer মতে, ২০১৬  সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের খুচরা বিক্রেতারা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং ৪.৭  বিলিয়ন ডলার ব্যয় করেছিল। এটি খুচরা বিক্রেতার মোট ডিজিটাল ব্যয়ের প্রায় ৭.৫ শতাংশ উপস্থাপন করে। In.com ম্যাগাজিনটি ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলো যে ২০২০ সালের মধ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ডিজিটাল মার্কেটিং ব্যয় বেড়ে ৬.৪ বিলিয়ন হয়ে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। এই ধারাবাহিকতায় ২০২৩ সালে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর  ব্যয় বেড়ে ৮ বিলিয়ন ডলার ছেড়ে যাবে । 

এবং গুগল ট্রেন্ডস অনুসারে, “Affiliate Marketing” শব্দটির Search Volume সেপ্টেম্বর ২০১৬ থেকে সেপ্টেম্বর ২০১৭ পর্যন্ত ৩০ শতাংশ বেড়েছে।

এই মুহূর্তে  আপনি যদি গোপন কিছু  পেয়ে যান  এবং যেটি আপনাকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এ সফল হতে সাহায্য করবে! তাহলে কেমন হবে ?

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এ সফল হওয়ার  সমাধান গুলো দেখুন ।

  • প্রথমত লাভজনক বিষয় সন্ধান করুন, এবং দেখুন কম্পিটিটর কম কি না ।
  • একটি SEO অপ্টিমাইজড ব্লগ সেটআপ করুন, যেন গুগল আপনার আর্টিকেল কে ভালোবাসে এবং রাঙ্ক দেয় ।
  • অ্যাডভান্স অফপেজ এসইও করুন । যেটি এই কোর্সে আমরা করবো ।
  • আপনার ভিজিটরদের বন্ধুতে পরিনত করুন । এবং তাদেরকে ভালো বিষয়ে ধারনা দিন ।
  • ভিজিটরদের কেনার বিষয়ে বিশ্বাস করান, আপনার আর্টিকেল পড়ে যেন প্রোডাক্ট কেনার উৎসাহ পায় এবং অন্যদের বলে সেটি করুন ।
  • সাবজেক্ট অনুযায়ী নির্দিষ্ট ভিজিটরদের কাছে প্রোডাক্ট বিক্রি করুন । যেটি আমরা এই কোর্সে দেখিয়েছি ।

উপরের এই কাজগুলোই আপনাকে আপনার গেমিং এ সফল হতে ১০০% সাহায্য করবে ।

  • কারন উপরের কাজ গুলো সঠিকভাবে সম্পন্ন করতে পারলে আপানর মূল্যবান সময় নষ্ট হবে না  ।
  • কারণ এখন আপনি জানেন কী করবেন, কখন করবেন এবং কীভাবে করবেন।
  • কারণ এই কাজগুলো আপানকে আর্থিক ভাবে মুক্ত করতে সাহায্য করবে ।
  • কারণ এই কাজগুলো করলে অ্যাডভারটাইজিং এর জন্য শত শত ডলার নষ্ট হবে না ।
  • যার ফলে আপনার বন্ধুবান্ধব, বাবা-মা, বাচ্চাদের এবং আপনার সহধর্মিণীর জন্য ইচ্ছা মত সময় দিতে পারবেন ।

যারা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর কোর্সটি করতে আগ্রহি তাদের জন্য  নিচে ৫ টি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর বাধ্যবাধকতা দেয়া হল, এই বিষয়গুলো আপনাকে সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করবে ।

#১ অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কোন  স্থিতিশীল ব্যবসা নয়  

২০২৩ সালে ৮ বিলিয়ন ডলার বাড়তে পারে এমন একটি ব্যবসা স্থিতিশীল ব্যবসা নয় । কারন এটি শুধু মাত্র একটি সমীক্ষা এটি নাও হতে পারে । তাহলে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করা যাবে না ?

আপনি কি মনে করেন যে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং পরবর্তী ৫, ১০  বা ১৫  বছরে বন্ধ যাবে?

আসলে, বেশিরভাগ অফলাইন ব্যবসা বিপদে রয়েছে কারণ আমরা এখন অনলাইনে সমস্ত কিছু কিনতে পছন্দ করি। সুতরাং অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং পরবর্তী কয়েক বছরের মধ্যে বিপ্লব আনতে চলেছে।

 #২  অ্যাফিলিয়েট মার্কেটার  হওয়া খুব কঠিন । 

হ্যাঁ, আপনি যদি পদক্ষেপ না নেন তবে এটি কঠিন। আপনি যদি কোর্স কেনা চালিয়ে যান, ব্লগ পড়তে থাকেন, ভিডিও দেখেন এবং  সেঅনুসারে পদক্ষেপ না নিলেন, তবে নিশ্চিতভাবে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটার হওয়া খুব কঠিন।

তবে আপনি যদি বিশ্বাস করেন যে আপ্নার দ্বারা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্ভব তাহলে জেনে রাখুন আপ্নার জন্য এটি বিশ্বের সবচেয়ে সহজ ব্যবসা যেখানে আপনি বিশ্বের যে কোনও জায়গায় বসে অর্থোপার্জন করতে পারেন।

  #৩  অনেক প্রযুক্তিগত জ্ঞান এর প্রয়োজন?

অনেকেই মনে করেন এই মার্কেটে নামতে হলে অনেক জ্ঞানের দরকার । হাঁ এটা সত্যি । কিছুটা কঠিন হলেও আপনাকে কোন কোডিং করতে হবেনা ।  অ্যাফিলিয়েট ব্লগ চালানোর জন্য খুব বেশি প্রযুক্তিগত জ্ঞানের প্রয়োজন হয় না। আপনার কেবলমাত্র একটি ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগ, এবং অ্যাফিলিয়েট  লিঙ্কগুলি ট্র্যাকিং প্লাগইন এবং কিছু ভালো  মানের আর্টিকেল প্রয়োজন।

 #৪  এর জন্য প্রচুর অর্থ এবং সময় প্রয়োজন?

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করতে প্রচুর অর্থের প্রয়োজন হয় না, তবে হ্যাঁ, বেসিকগুলি শিখতে আপনার সময় প্রয়োজন।

যদি এটি এত সহজ হত, তবে এই পৃথিবীর প্রত্যেকেই অ্যাফিলিয়েট মার্কেটার হয়ে যেত ।

আপনাকে বেসিকগুলি শিখার আগ্রহ জাগাতে হবে এবং নিজের অবস্থানের কথা চিন্তা করতে হবে । আপনাকে কিছু একটা হতেই হবে এরকম সংকল্প থাকতে হবে ।

 #৫ কেবল একটি ব্লগ শুরু করে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটার এ পরিণত হতে পারি ।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সহজ নয় যে, যে কেউ চাইলেই কীওয়ার্ড গবেষণা এবং ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগ শুরু করে লাভজনক ব্লগ শুরু করতে পারেন। এখানে সুনির্দিষ্ট সাবজেক্ট এর কয়েকটি ব্লগ থাকা উত্তম । ভালো অ্যাফিলিয়েট মার্কেটাররা এই কাজটি করে থাকেন ।

 যদি এমনটি হত তবে বিশ্বে এতগুলি “ব্যর্থ অ্যাফিলিয়েট মার্কেটার” থাকত না।

এত প্রতিকুলতার শর্তেও  আমি কেন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করছি?

আমি চিন্তা করেছি আমি এত বছর পড়াশোনা করেও ১০,০০০/- টাকার জব পেতে কষ্ট হয় । ২৫ বছর পড়াশুনার পিছনে অনেক টাকা খরচ হয়েছে । কিন্তু কি পেলাম !!!

পরে ব্যবসার কথা চিন্তা করলাম ।  ব্যবসা  শুরু করার কিছু দিন পর শুরু হল লোকসান । এর কিছু কারন ছিল – প্রথমত সকল ক্ষেত্রে অনেক কম্পিটিটর , বাজার নিয়ন্ত্রন যারা করে তারাই সরাসরি গ্রাহকদের সাথে ক্রয় বিক্রয় শুরু করে দিয়েছে , চাহিদার তুলনায় বাজার অনেক বড়, রাজনৈতিক অস্থিতিশিলতা , লকডাউন , ঝর, বৃষ্টি, অনেক কিছু ।

আমি মানুষকে লড়াই করতে দেখেছি  । 

আমি বিভিন্ন সেমিনার এবং সম্মেলনে অনেক লোকের সাথে দেখা করি যারা গত ৩-৪ বছর ধরে ব্লগিংয়ের চেষ্টা করছেন এবং এখনও সেই মুহুর্তের জন্য অপেক্ষা করছেন জনপ্রিয়তা পেতে এবং অবশেষে অনলাইনে কিছু অর্থ উপার্জন করতে।

আমি দেখেছি আমার কাছের বন্দুরা রাত জেগে ১ লক্ষ টাকার ও বেশি আয় করছে । কিন্তু তারা এই ১ লক্ষ টাকার জন্য মাত্র ৩ থেকে ৪ বছর সময় দিয়েছে । তাহলে আমি কেন পারছি না !! আমি আরও সময় দিতে প্রস্তুত ।

কারন যেখানে ২৫ বছর পরাশুনা করে কোন কাজে আসেনি সেখানে মাত্র ৩ থেকে ৪ বছর !! এটা সত্যি ভালো খবর । তাই ঝাপিয়ে পরলাম অনলাইনে । মাত্র ৬ মাসের মাথায় আমি ৫০- ৬০ ডলার পেয়ে যাই ।

এবং একটি চ্যানেল করি । সবাই কে জানানোর চেষ্টা করছি । এই সুবাদে চ্যানেল থেকেও ইনকাম শুরু হয়ে যায় । এই পর্যন্ত বর্তমানে আমার ৫ টি ব্লগ । আমি যে শতভাগ সফল হয়েছি তা নয় । তবে অনেক কিছু পেয়েছি । এ জন্য আল্লাহর কাছে শুকরিয়া ।

আমি আমার এই গোপন অভিজ্ঞতা গুলো শেয়ার করতে চাই যেন সবাই অন্তত ভালো কিছু জানতে পারে । যেন ভুল না করে ।

এখানে আপনি কিছু অর্থ বিনিয়োগ করে আপনার জীবনের কয়েকটি মূল্যবান বছর বাঁচাতে পারবেন?

আপনি এখানে কিছু সফল ব্লগারদের গোপন টিপস শিখে শতভগ সফল হতে পারবেন ।

তাহলে কি কি বিষয় এবং কোন কৌশলগুলি জানতে পারলে আপনি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এ সফল হবেন ? 

 # ১: অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করার মানসিকতা: একটি অ্যাফিলিয়েট মার্কেট সফলভাবে প্রতিষ্ঠা করার জন্য কয়েকটি বাধা কাজ করে যা আপনার মাথার অভ্যন্তরে প্রবেশ করতে হবে। আপনাকে বিশ্বাস করাতে হবে পূর্বে আপনি যা শিখেছেন তার 99% এর বাস্তবে কোনও অস্তিত্ব নেই।

 # ২: কীভাবে একটি নিখুঁত ব্লগ সাইট তৈরি করবেন: একটি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং ব্লগ সাইট এবং অন্য সাধারণ ব্লগের মধ্যে দিন রাত ব্যবধান রয়েছে,  সেই কারণেই অনেক নতুনরা তাদের প্রথম বিক্রয় দেখতে ব্যর্থ হন। আমি আপনাকে একটি নিখুঁত অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং ব্লগ সেটআপ করতে শেখাবো যেটি আপার কাঙ্ক্ষিত প্রথম ইনকাম এনে দিবে ।

 # ৩: কীভাবে আপ্নার ক্রেতাদের পণ্য ক্রয়ের জন্য বুঝাবেন: এখানে প্রচুর ব্লগ রয়েছে যারা আপনার মতো অ্যাফিলিয়েট করছে। যেহেতু অনেকগুলো ব্লগ রয়েছে বুঝতে হবে কম্পিটিটর রয়েছে । কিন্তু যারা ক্রেতা তারা কয়েকটি ব্লগ চেক করে তার পর কেনার সিদ্ধান্ত নেয় । তাই আপনাকে এই ব্যাপারে কৌশল দিব । যেন ক্রেতা আপ্নার কাছ থেকেই কিনতে বাধ্য হন ।

 # ৪: মার্কেট গবেষণা: আমি আপনাকে টপ রেটেড পণ্যগুলি খুঁজতে এবং অন্যান্য অ্যাফিলিয়েটাররা  কী করছে কি ভাবে টোটাল মার্কেট গবেষণা করতে হবে তা শিখিয়ে দিব ।

 # ৫: আর্টিকেলের বিষয়বস্তু: আপনার ব্লগে আর্টিকেল লেখার জন্য কিছু গোপন তথ্য আছে সেটি কি এবং কিভাবে আর্টিকেল লিখলে ক্রেতা বিরক্ত হবেনা সেতি শিখাব।

 # ৬ঃ কীওয়ার্ড রিসার্চ: নতুন ব্লগারদের অনেকেই কীওয়ার্ড রিসার্চ ভুল করছেন। এখানে আমি আপনাকে আপনার প্রোডাক্ট অনুযায়ী সাইটগুলির জন্য মার্কেটের সর্বসেরা কীওয়ার্ডগুলি খুঁজে পেতে সঠিক কৌশল গুলো দেখাব ।

 # ৭: ইমেল মার্কেটিং: কীভাবে বড় সংস্থাগুলি থেকে অ্যাফিলিয়েট কমিশনগুলি পাবেন এবং কিভাবে একটি মেইল লিস্ট তৈরি করে অটোরেস্পন্স করা যায় সেটি দেখাবো।

কিছু প্রশ্ন উত্তর

প্রশ্ন ১ ।  আমি একদম নতুন কিছুই জানিনা এই কোর্সটি করতে পারবো?

হ্যাঁ, পারবেন , তবে বেসিক এসইও এবং  বেসিক অ্যাফিলিয়েট সম্পর্কে ধারনা থাকলে আরও দ্রুত পারবেন ।

প্রশ্ন ২। এটি শুরু এবং শেষ করতে কত খরচ হবে?

প্রশিক্ষণের মূল্য ছাড়াও আপনাকে আরও ২৫ – ৩০ হাজার টাকা খরচ করতে হবে । কারন আমরা যে কৌশল গুল দেখিয়েছি এগুলো সবই আডভান্স তাই আপ্নকে কিছু টুল কিনতে হবে । তবে সব টাকা একেবারেই ইনভেস্ট করতে হবে তা নয় । কারন সব টুল একদিনেই কিনতে হবে না ।

প্রশ্ন ৩ । কোর্সটি কত দিন?

এই সম্পূর্ণ কোর্সটি ৭ মডিউলে বিভক্ত তাই সম্পূর্ণ কোর্স শেষ করতে ৭-৮ দিন সময় লাগবে। তবে লাইভ ক্লাস হলে ১ মাস ১৫ দিন লাগবে ।

বর্তমানে লাইভ ক্লাস হবে তাই ১ মাস ১৫ দিন সময় লাগবে ।

প্রশ্ন ৪ । শুনেছি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং প্রতিযোগিতামূলক… এটা কি সত্য?

হ্যাঁ,  তবে আমি যে পদ্ধতিগুলি শিখিয়েছি সেগুলি আপনাকে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর বাজারে সেরাদের তালিকায় স্থান করে দিবে । তবে একটু পরিশ্রম এবং মনযোগী হতে হবে ।

প্রশ্ন ৫ । ফলাফল দেখতে কতদিন লাগবে ?

আমরা ৬ মাসের টার্গেট দেয় । এই ৬ মাসের মধ্যে আপনি ইনকাম করতে পারবেন । (গুগলে কোন কন্টেন্ট রাঙ্ক করতে ৩ থেকে ৬ মাস সময় নেয়) তবে আপনি যদি ধীর গতিতে চলেন তাহলে এটা আপ্নার উপর নির্ভর করবে ।

প্রশ্ন ৬ । আমি কত টাকা উপার্জন করতে পারি?

এটা আপ্নার লক্ষ্যর উপর নির্ভর করবে । তবে প্রাথমিকভাবে নুন্নতম যেন ১০০ ডলার থেকে ২০০ ডলার উপার্জন করা যায় সেই ব্যবস্থা করবো।

প্রশ্ন ৭ ।  আমার যদি টাকা না থাকে তবে কী হবে?

তাহলে এই কোর্সটি আপনার জন্য নয়।

কিছু সতর্কতা!

এটা একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় তাই এই কোর্সের কিছু সতর্কতা রয়েছে । যেহেতু এটি লাইফের একটি অংশ এবং অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং অন্যান্য মার্কেটের মত না । এখানে সফলতার হার খুবই কম । তবে যারা জানে তাদের জন্য এটি অমূল্য কিছু ।

এটি কোনও অলৌকিক ব্যাপার নয়। আপনি যদি মনে করে থাকেন যে একটি পেজে কয়েকটি প্রোডাক্ট দিয়ে প্রমোট করবেন আর ইনকাম আসবে তাহলে ভুল করবেন ।

এটি অলস অ্যাফিলিয়েটার জন্য নয়। (আপনাকে কাজ করতে হবে, বিশেষত শুরুতে । কোন মতেই কাজ থেমে রাখা যাবে না । আপনাকে বুঝতে হবে যে এটি আপ্নার চিন্তার চেয়েও কঠিন, তাহলে ব্যাপারটা সহজ হয়ে যাবে ।

এটি উচ্চাকাঙ্ক্ষী, দায়িত্বশীল, সম্পদশালী এবং স্ব-অনুপ্রাণিত ব্যক্তিদের জন্য।

এই কোর্সটির সাথে বোনাস হিসেবে কি কি পাবেন ?

  • গুগলে রাঙ্ক করবে এরকম ২০০ টি প্রোডাক্ট আইডিয়া । যেগুলো ৩ মাস ধরে মার্কেট রিসার্চ করে বের করেছি । 
  • একটি ৫৯ ডলারের অ্যাফিলিয়েট থিম । 
  • লাইফটাইম ভিডিও লিংক অ্যাক্সেস এর সুবিধা । 
  • লাইফটাইম সাপোর্ট । 
  • সিক্রেট টেলিগ্রাম গ্রুপ লিংক । 

২০২৩ সালকে টার্গেট করে আজকেই কাজে নেমে পড়ুন । এবং ২০২৩ সাল থেকে যেন প্রতি মাসে ৫০০ ডলার ইনকাম করতে পারেন সেই প্রতিজ্ঞা করুন ।

কোর্সটি পেতে নিচের পক্রিয়াটি সম্পন্ন করুন । অথবা এই নাম্বারে যোগাযোগ করুন – ০১৮১৩-০১৫৭৫৭ (Whatsapp)

মাত্র – ৯,৯৯৯/-   ১৪৯৯৯/-

আইটি হাউজ


Spread the love

8 thoughts on “অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কোর্স ইন বাংলাদেশ”

  1. ডিজিটাল মার্কেটিং শিখার খুব ইচ্ছে
    কিন্তু শিখার কোন মাধ্যম পাচ্ছিনা,তবে আপনার ইউটিউব ভিডিও দেখে আমার ভালো লাগছে, তাই আমিকী আপনাদের মাধ্যমে ডিজিটাল মার্কেটিং শিখতে পারি?

  2. Trump’s pressure on investigators prompted Rep.

    Zoe Lofgren, who sits on the House committee probing the insurrection, to warn that the ex-President had issued a “call to arms.”
    “Calling out for demonstrations if, you know, anything adverse, legally, happens to him, is pretty extraordinary. And I think it’s important to think through what message is being sent,” the California Democrat told CNN’s Pamela Brown on Sunday.
    In yet another sign of Trump’s incessantly consuming inability to accept his election loss, he issued a statement that same evening slamming former Vice President Mike Pence for refusing his demands to overturn the result of the democratic election in 2020, and falsely claimed that the then-vice president had the power to do so.

  3. I must thank you for the efforts youve put in penning this site. I am hoping to check out the same high-grade blog posts by you in the future as well. In fact, your creative writing abilities has motivated me to get my very own blog now 😉

  4. Just looking at your article on my new Garmin Phone , and I wanted to check if it would let me comment or if it was going to me go to a pc to do that. Ill check back later to see if it worked.

Comments are closed.