ভিডিও কপি পেস্ট করে কিভাবে ইউটিউব থেকে উপার্জন করা যায়?

Spread the love

ইউটিউব থেকে উপার্জন

আসলেই কি উপার্জন করা যায় ?

হ্যাঁ উপার্জন করা যায় । এবং মিলিয়ন মিলিয়ন ইউটিউবার এই কাজটিই করছেন । আপনি দেখবেন একই ভিডিও ভিবিন্নভাবে প্রেজেন্ট করা হচ্ছে । একটা উদাহরণ দিচ্ছি – একজন হুজুরের ওয়াজ আমারা অনেক ভাবেই দেখে থাকি । ডা জাকির নায়েকের একই ভিডিও ভিবিন্নভাবে উপস্থাপন হচ্ছে ।

একই রকমের ফান ভিডিও ভিবিন্ন ডিজাইন করে উপস্থাপন করা হচ্ছে । একই নামের ফিল্ম অনেকের চ্যানেলে দেয়া হচ্ছে । এবং এই চ্যানেল গুলোতে লক্ষ লক্ষ সাবস্ক্রাইবার রয়েছে । এই চ্যানেল থেকেই মাসে কয়েক লক্ষ টাকা উপার্জন হচ্ছে ।

একজন ইউটিউবার কেবল একটি চ্যানেল তৈরি করেনা । একজন সফল ইউটিউবারের অন্তত ৪ থকে ৫ টি চ্যানেল আছে । কারন কপি করে অন্য ভিডিও দেয়ার মধ্যে তেমন পরিশ্রম নেই । তাই একটি চ্যানেল সফল করতে পারলেই তারা আরেকটি চ্যানেল রান করছেন । তবে কাজটি কিভাবে করে সে বিষয়ে নিচে বিস্তারিত বর্ণনা দেয়া আছে ।

কিভাবে কাজটি করা যায় ?

এই কাজটি করার জন্য আপনাকে হাল্কা পাতলা ভিডিও এডিটিং জানতে হবে । যেমন

  • কিভাবে লোগো পরিবর্তন করবেন
  • ব্যাকগ্রাউন্ড পরিবর্তন
  • সাউন্ড এডিটিং

এই তিনটি কাজ জানলেই চলবে । তবে এই তিনটি কাজ না জানলেও অন্য আরও একটি পদ্ধতি রয়েছে সেটি হল – আপনি টিকটক থেকে ভিডিও নিয়ে ইউটিউবে সর্ট আইটেমে আপলোড করতে পারেন । যেহেতু টিকটকে ভিডিওতে লোগো থাকে, সেজন্য প্রথমে লোগো রিমুভ করতে হবে । যেভাবে কাজটি করবেন –

প্রথমে টিকটক ওপেন করুন > তারপর যেকোনো একটি ভিডিও সিলেক্ট করুন যেটি আপনি আপনার ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করতে চান > লিংকটি কপি করুন ।

এরপর লিংকটি Snaptik ওপেন করে ডাউনলোড করে নিন ।

ডাউনলোড করার পর দেখবেন টিকটকের লোগো রিমুভ হয়ে গেছে ।

এরপর ভিডিওটি Canva.com এ আপলোড করুন । এবং এটির এডিটিং শেষে ডাউনলোড করে ইউটিউবে আপলোড করুন ।

সম্পূর্ণ ব্যাপারটি যদি না বুঝে থাকেন তাহলে নিচের দিভিও টি দেখুন –

ভিডিও কপি পেস্ট করে কিভাবে ইউটিউব থেকে উপার্জন করা যায়?

কত টাকা উপার্জন করতে পারবো ?

এই মার্কেটপ্লেসে ইনকামের কোন লিমিট নেই । তবে প্রাথমিক ভাবে ইনকাম শুরুর জন্য ১ হাজার সাবস্ক্রাইবার লাগবে এবং ৪ হাজার ওয়াচ টাইম লাগবে । এর পর আপনি আপনার চ্যানেলে অ্যাড দেখানোর জন্য গুগলে অ্যাডসেন্স এ আবেদন করতে পারবেন ।

কত দিন সময় লাগবে ?

একটি চ্যানেল থেকে উপার্জন করার জন্য নূন্যতম ৬ মাস থেকে ২ বছর পর্যন্ত সময় লাগতে পারে । তবে এটি নির্ভর করবে আপনার কাজের উপর । ভিডিওর কয়ালিটি ভালো হলে অনেক ক্ষেত্রে ভাইরাল হতে পারে । সেক্ষেত্রে সময় অনেক কম লাগবে ।

কোন ধরনের ভিডিওতে বেশী ভিউ আসতে পারে ?

যেগুলো ট্রেন্ডিং এ আছে সেগুলো বেশী বেশী আপলোড করবেন । যেমন সমসাময়িক নিউজ , কোন মানুষ কে নিয়ে ট্রল , কোন প্রানির আকর্ষণীও খেলা , কোন স্টার এর বর্তমান নিউজ , খেলাদুলার বিশেষ বুলেট এই ধরনের ভিডিও গুলো অনেক বেশী ভিউ হয় । তবে যেকোনো একটি ক্যাটাগরি নিয়ে কাজ করুন । এবং একই ক্যাটাগরিতে নূন্যতম ৬ মাস কাজ করুন ।

কি পরিমান ইনভেস্ট করতে হবে এই কাজের জন্য ?

তেমন কোন ইনভেস্ট লাগবেনা । শুধু ভালো কনপিগারের একটি ল্যাপটপ বা ডেক্সটপ এবং ইন্টারনেট লাইন হলেই চলবে । কি কনপিগারের ল্যাপটপ লাগবে ? যেমন – cor i5 7th Gen, Ram-8gb, SSD-300 gb. এই কনপিগারের হলেই চলবে ।

কাজটি করে আর্থিক ভাবে সচল হতে পারবো ?

ধৈর্য ধারন করে কাজ করলে সফলতা আসবে । প্রথমে ইনকামের কথা না ভেবে মন দিয়ে কাজ করুন । এই কাজের উপর এক্সপার্ট হওয়ার জন্য যা যা লাগে সেটি করুন । কাজের উপর জাপিয়ে পড়ুন । দেখবেন টাকা আপানকে ধরা দিবে ইনশাল্লাহ । আর্থিক ভাবেও সফল হবেন ।

আর্টিকেল টি মনোযোগ দিয়ে পড়ার জন্য ধন্যবাদ । আপনার আরও সহযোগিতার প্রয়োজন হলে কমেন্টে জানান। ধন্যবাদ ।

Daudul Islam

Daudul Islam

Digital Marketing Consultant from Dhaka, Bangladesh. He is also an Author, Speaker and Trainer in the field of Digital Marketing.

Daudul Islam Signature


Spread the love

Leave a Comment